বোম্বাই মরিচ

শহীদুল ইসলাম প্রামানিক

পাক-ভারতটা ভাগ হয়েছে
চলছে আর্মি শাসন
পাকিস্থানী বাংলায় এসে
দিচ্ছে উর্দু ভাষণ।

উর্দু ভাষী আর্মিরা সব
গাওগেরমে ঢুকে
বিনা কারণে বাঙালীদের
অস্ত্র ঠুকছে বুকে।

গাঁয়ের হাটে এক কৃষকে
মরিচ নিয়ে বসা
উর্দু কথা না বলাতে
মরণ হবার দশা।

বলছে তারে পাক আর্মিরা,
“কেয়া চিজ ভাই”?
‘বোম্বাই মরিচ’ নাম কওয়াতে
মারল লাথি তাই।

গাল দিয়ে কয়, “মুম্বাই মরিচ
ব্লাক মেইলিং কর”
যতই বলে দেশী মরিচ
মার দেয় তারপরো।

পাশেই ছিল গুড়ের দোকান
সেই খানেতে গিয়ে
জিজ্ঞেস করল, “কেয়া চিজ হায়”
লাঠি হাতে নিয়ে।

দোকানদারে বলল হেসে,
“এইয়া আখি গুড়”
মুখে দিয়ে মিষ্টি লাগায়
কণ্ঠে রাগের সুর।

“হারামজাদে ঝুট বলা হয
ইয়ে তো মিঠাই”
এই না বলেই লাঠির পেটন
চলতেছে সাঁই সাঁই।

কি যে বিপদ ছিল মোদের
পাক আমলে এসে
কথায় কথায় লাঠির পেটন
চলতো সারা দেশে।

সেগুন বাগিচা
রাত ঃ ৯ টা ২৫ মিনিট
তারিখ ঃ ২৫-১২-২০১৫ইং

One thought on “বোম্বাই মরিচ”

Leave a Reply